vikkhuk bondona uwriter club

ভিক্ষুক বন্দনা

অভাবী সত্তা, ভিক্ষুকের আত্তা।
আমরা দুলালেরা নই কি তা?
আমরাও তা; আমি সত্যভাষী।

প্রভুর নামে, অক্ষমতার খামে,
ভিক্ষা কি শুধু ওই দুটো পয়সার হয়?
আমি সত্যভাষী, আমরা সকলে ভিক্ষুক।

রাস্তা-ঘাটে, যত্র-তত্র যে পয়সা চায়,
তাকে খালি ফিরিয়ে দেই নিজের রাগের দায়।
ওই দুটো পয়সার সাথে শুধু কি আমার-তার সম্পর্ক হয়?

মনুষ্যত্বের কথা বিজ্ঞ লোকে চর্চা হলেও
এখন তা পাঠ্যে চর্চিত হয়।
মনের সাথে মনুষ্যত্বের এখন কোন সম্পর্ক নাই।

এই পাষাণভারী হৃদয় নিয়ে কোথায় আছে ঠাই?
কোথাও নেই ভাই, আমরা লজ্জিত তাই,
লজ্জা লাগে ভিক্ষুককে দেখলে কাছে;

জানেন কি তা আপনার ও তো কিছুর অভাব আছে।
অভাবী বলে, “অভাবী নই।”
“সব অভাব পূর্ণ হবে টাকায়।”

জ্ঞান পিপাসা-ভালবাসা-মনুষ্যত্বের অভাব,
কোন পয়সা-দিনার দিতে পারে সবার
এসব স্বভাব?
জ্ঞান শুন্য জাতি বলতে লজ্জা করি তাই।
যে মানুষটা বসে থাকে তার কি লজ্জা নাই?
তবুও পেটের দায়।।

হাতকাঁটা-হাড্ডিসার হয়েও, পা আছে বলে,
ওই ভিক্ষুক ছেলেটি লিখে যাচ্ছে
এখনও তার-বলে।
শাস্ত্র মতে ওই ছেলেটির কোন ব্যবস্থা নাই?
জ্ঞান পিপাসার অভাব মেটাতে ভিক্ষা করে তাই।

নিজ মস্তিষ্কে চিন্তা করুন,
নিজেরই কথা ভাবুন।
আপনারও কিছুর অভাব আছে
পরিমাপ করে দেখুন।

নিজের দিকে তাকিয়ে,
মজগটাকে বাঁকিয়ে,
ভালোবেসে দেখুন অভাবীকে।

ধন-রত্নের মূল্য পরিমাপযোগ্য হলেও,
লোক-ভালোবাসার এই মায়ার পরিমাপ অনির্ণেয়।

About the Author তানভীর এহসান

আমি লেখা-লেখির প্রয়াসী।

follow me on:

Leave a Comment: