chandramukhi book review uwriter club

বইয়ের নাম – চন্দ্রমুখী

বই : চন্দ্রমুখী
লেখক : আশীফ এন্তাজ রবি
প্রকাশনী : আদর্শ
প্রকাশকাল : ১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮
পৃষ্ঠা সংখ্যা : ৮৭
প্রচ্ছদ : সব্যসাচী মিস্ত্রি
আমার রেটিং : ৩.৩/৫

কাহিনী সংক্ষেপ:

মুনার বছর দশকের বড় ফুপাত বোনের(ইভা) বিয়েতে এক খামখেয়ালি ছেলের সাথে পরিচয় হয়। ফরিদ নামের ছেলেটা ইভার পুরোনো প্রেমিক। দাওয়াতের কার্ডে ইভা খুব সুন্দর করে তার সব এক্স-বয়ফ্রেন্ডকে আসতে না করেছিলো। আর কেউ না আসলেও ফরিদ এসেছিলো, শিমুল ফুলের মালা হাতে। অদ্ভুদ কিছু কথপোকথনের পর থেকেই মুনার পছন্দ হয়ে যায় লোকটিকে। বোকাসোকা, অলস, মিথ্যেবাদী ছেলেটা মিথ্যেকথা বলার জন্য চাকরিতে প্রমোশন পেয়ে যায়। কিন্তু শহুরে জীবনের যাত্রা সব সময়ই ঘোরানো-পেচানো। একদিন মুনার সাথে দেখা করার প্লান করে অফিস থেকে বের হয়ে সে নিজেই গায়েব হয়ে গেল। ফরিদ কি আর ফিরে আসবে? নাকি ভেঙে যাবে মুনা-ফরিদের স্বপ্ন?

মতামত:

বইটি পড়লে সর্বপ্রথম যে ভাবনা মাথায় আসবে সেটা হলো, “হুমায়ুন আহমেদের লেখা?” আশীফ এন্তাজ রবির লেখার সাথে পরিচয় হলো এই বইয়ের মাধ্যমে। আশ্চর্যজনকভাবে ওনার লেখার ধরণ হুমায়ুন আহমেদের মত(প্রায়)। এটা ওনার নিজের বৈশিষ্ট্য নাকি হুমায়ুন আহমেদের লেখার অনুপ্রেরণায় উনি এভাবে লিখেছেন, সেটা বলা মুশকিল। অনেকেই ওনার এই বৈশিষ্ট্য কে নেগেটিভভাবে দেখছে। আমি এই বিষয়ে মন্তব্য করতে চাই না। বইয়ের মূল কাহিনী খুব ছোট। পার্শ্ব কাহিনী হিসেবে চরিত্রের বৈশিষ্ট্য নিয়ে লেখক কয়েকটা অংশ লিখেছেন। হাস্যরসাত্মক ভঙ্গিতে পুরো কাহিনীটি এগিয়েছে।
ফরিদ চরিত্রটি বেশ ইন্টারেস্টিং। খামখেয়ালিপণা, চমৎকার সব মিথ্যে বলে বেড়ায় সে। বিশেষ করে তার একটা চিঠি পড়ে বেশ হেসেছি। ছবিতে আছে সেটা।

ঘটনাগুলো সমান্তরালভাবে চলতে চলতে শেষের দিকে এসে মোড় ঘুরে যায়। নির্দিষ্ট করে বললে শেষ ১০-১২ পৃষ্ঠা পড়ে আমি বেশ কিছুটা থ্রিল পেয়েছি। সেই সাথে ট্রাজেডি। বইয়ে ঢাকা শহর কেন্দ্রিক সমাজের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে কিছু ধারণা পাওয়া যাবে। যেমনঃ গুম করা, রাজনৈতিক ব্যাপার-স্যাপার, ধোঁকাবাজি, সাংবাদিক এবং পুলিশের আচরণ ইত্যাদি।
বইয়ের নামকরণ নিয়ে কয়েকজনকে মাথা ঘামাতে দেখলাম। বইয়ের কি নাম দেবেন সেটা সম্পুর্ন লেখকের ওপর। কেন বইয়ের নাম “চন্দ্রমুখী” বইয়ে সে ব্যাপারে সামান্য ব্যাখ্যা আছে।

উপভোগ করার মত বই। আমি যতটুকু হাস্যরস আশা করেছিলাম তার থেকে কিছুটা কম পেয়েছি। তবে সবমিলিয়ে ভালো লাগার মত একটি বই। খুব তাড়াতাড়ি সমাপ্ত করা হয়েছে। তাই পড়তে এক ঘন্টার বেশি লাগবে না। আর বড় বই হলে উপভোগ্য হত।

আর হ্যাঁ, প্রচ্ছদটা খুব ভালো।

About the Author ফাহিম মোন্তাসির

স্বপ্ন দেখি একদিন বিশাল এক লাইব্রেরির মালিক হব। এই আধো-বাস্তবতার বাইরেও অতি বাস্তব একটি স্বপ্ন আছে, বড় হয়ে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হব। লেখালেখির প্রারম্ভে আছি। সাহিত্যিক হওয়ার ইচ্ছা নেই, শখের বশেই লিখি। বর্তমানে পড়ালেখা করছি আদমজী ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুলে।

follow me on:

Leave a Comment: