অচেনা শহরে

অচেনা শহরে গাড়ি ঘোড়ার বহরে আপন তো নয় কেহ,

যেন আপনারে লয়ে ব্যস্ত রহিতেই সৃষ্ট আপনার দেহ।

সকাল না হতেই ব্যস্ততা শুরু যেন মানবউদ্যানে ঢাকা মরু,

এ যেন আঁকিয়াছে কোন কঠিন শিল্পী গুরু।

হাজারো মানুষ তবু বুঝি কেউ কারো নয়,

শহরেতে কেবল আপনারে লয়ে ব্যস্ত মানুষ হয়।

তাকানোর সময় নাই সবে খোজে আপন পথ,

কেহ পায় রথ কেহ ফিরে লয়ে ব্যর্থ মনোরথ।

সন্ধে গড়াতেই রাস্তাই জ্বলে সোডিয়াম লাইটের

আলো তার মাঝেই ফাঁকে চলে কর্ম কালো,

যা নয় কাম্য তা নয় মোটেও ভালো।

মস্ত দালানের পাশেই বস্তি যেথা নেই স্বস্তি,

মানুষের হ্রদয়ে সেথা বাজে কেবল সূর অস্বস্তি।

শহরে শোষিত শ্রমিক শ্রমের মূল্য পায় অল্প,

অধিকার চাইলে হয়ে যায় এ সাজানো গল্প।

এ যেন কেহ মরে বিল ছেঁচে কেহ খায় কই,

কি লাভ তবে পড়িয়া হাজারো বই?

বঞ্চিত শ্রমিকের পক্ষে যদি তোমার বিদ্যা না আসে কাজে,

তবে তোমারই অর্জিত বিদ্যা বলবো সে তো বাজে।

অচেনা শহরে দেখলাম আরো কত কিছু,

বিপত্তি এখানেও নিয়েছে আমার পিছু।

বলেছেন এক দাদা আমি নাকি গাধা,

শ্রমিকের পক্ষে কেন দেই তাদের বাধা?

কবি নই তবু আঁকি বঞ্চিত শ্রমিকের ছবি,

কেননা তাদের রুক্ষ হাত ধরেই উঠে সাফল্য রবি।

অচেনা শহরে এসে আমি বলি শ্রেষ্ট তারা,

বস্তিবাসী হতভাগ্য বঞ্চিত শ্রমিক যারা।

About the Author ইয়াছির আরাফাত

যদিও ব্যক্তি ক্ষুদ্র তথাপি আমি ভদ্র, কি বিশ্বাস হচ্ছে না বুঝি? ব্যবহারই বলবে আমি বামুন না শুদ্র।

follow me on:

Leave a Comment: