হিমু ভাবী

 

আজ ভীষণ চিন্তিত ঝুমুর। ওর বড় ভাইয়ার বিয়ে ঠিক হয়েছে আগামী সপ্তাহে। বড় ভাই এর বিয়েতে খুশিতে আত্মহারা হওয়ার বদলে উদ্বিগ্ন হওয়াতে বাড়ির অন্য সবার ব্যাপারটা ভালোভাবেই নজরে পড়েছে। ভাই এর বিয়েতে তারই তো হৈচৈ করে সমস্ত বাড়িটাকে উৎসবমুখর করে তোলার কথা। অথচ সদ্য ক্লাস সিক্সে ওঠা মেয়েটা মনে মনে কি এত ভাবছে!

 

কিছুক্ষণ পর চাচ্চু ঝুমুরকে জিজ্ঞাসা করেই বসলেন- কিরে পাগলি, কি এত ভাবছিস? কোথায় ভাইয়ার বিয়ে উপলক্ষ্যে সমস্ত বাড়িটা মাথায় তুলে নাচবি! তা না করে চুপচাপ বসে আছিস। এবার ঝুমুর মুখ খুললো। আচ্ছা চাচ্চু, ভাইয়ার হবু বউয়ের নাম তো হিমু, তাই না? কিন্তু হিমু তো ছেলেদের নাম হয়। তাহলে আমার ভাইয়া কি একটা ছেলেকে বিয়ে করছে? কথাটা শুনেই উপস্থিত সকলে হোহো করে হেসে উঠলেন। তাহলে এটাই ছিল ঝুমুরের চিন্তার বিষয়। চাচ্চু জবাব দিলেন- হিমু ছেলেদের নাম তোকে কে বলেছে? ঝুমুর- কেন, তুমি হুমায়ূন আহমেদের হিমুর কথা জান না? ঐযে ছেলেটা পকেট ছাড়া হলুদ পাঞ্জাবী পড়ে খালি পায়ে ঘুরে বেড়ায়। হিমু তো ছেলের নামই হয়। ভাইয়া যদি একটা ছেলেকে বিয়ে করে তবে আমার বন্ধুরা তো খুব হাসাহাসি করবে।

 

চাচ্চু ঝুমুরের ভুল ভাঙ্গিয়ে দিতে যাচ্ছিলেন দেখে অন্যরা ঈশারায় তাকে থামিয়ে দিলেন। সবাই কোন রকম আলোচনা ছাড়াই যেন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যে বিয়ের দিনই আসল রহস্যটা ভাঙ্গা হবে। তখন সবাই দেখবে ঝুমুরের মুখের অবস্থা কেমন হয়।

 

এভাবেই বিয়ের প্রস্তুতি প্রায় শেষের দিকে। আগামীকাল ঝুমুরের ভাইয়ার বিয়ে। এদিকে তার চিন্তা বেড়েই চলেছে। সে ভাইয়াকেও নিষেধ করেছিল একটা ছেলেকে বিয়ে না করতে। কিন্তু ভাইয়া বলেছে সে ঐ ছেলেটাকেই বিয়ে করবে। সবমিলিয়ে ঝুমুর আর কোন আশা দেখতে পাচ্ছে না। কাল যদি ওর বন্ধুরা এসে দেখে ওর ভাইয়ার বউ কোন ছেলে তাহলে সবাই এর ওপর খুব হাসবে। হাসবে নাই বা কেন! বউ কি কখনো ছেলে হয়। বউ হবে পরীর মতন সুন্দর একটা মেয়ে। যার টানাটানা চোখ থাকবে। কপালে লাল টিপ, লাল শাড়ি আর গা ভর্তি গয়না।

 

অবশেষে সেই বিয়ের দিন চলে এসেছে। বর‍যাত্রীরা কণের বাড়ি পৌঁছতেই সবাই বউ দেখার জন্য ভেতরের ঘরে গেল। ঝুমুর রাজি না হওয়ায় প্রায় জোড় করেই ওকে বউয়ের ঘরে নিয়ে যাওয়া হলো। ঘরে ঢুকেই ঝুমুর অবাক। একি!, এযে সত্যিকারের বউ। ঠিক সে যেমন তার ভাইয়ার বউয়ের কথা ভেবেছিল। পরীর মতন একটা সুন্দর মেয়ে যার টানাটানা চোখ, কপালে লাল টিপ, গা ভর্তি গয়না আর লাল বেনারসি পরে খাটের ওপর বসে আছে। এবার সে সত্যিই দুশ্চিন্তা মুক্ত হয়েছে। তার মানে এতদিন সবাই তাকে বোকা বানিয়েছে! তারপরও ভালো এই যে ভাইয়া কোন ছেলেকে বিয়ে করছে না। সবাইকে সরিয়ে ঝুমুর খাটের ওপর উঠে নতুন ভাবীকে আলতো করে জড়িয়ে গালে একটা চুমু দিল। বললো- যাক বাবা, ভাইয়া তাহলে একটা মেয়েকেই বিয়ে করছে। একথা শুনে ঘরভর্তি সবাই হাহা করে হেসে উঠলেন। আর বললেন- হ্যাঁ, তোর ভাইয়া একটা মেয়েকেই বিয়ে করছে।

About the Author মুনতাসির সিয়াম

মুনতাসির সিয়াম। আমার নামটাই বিশেষণের বিশেষণ। এর পর আর কিছু যোগ করার প্রয়োজন পড়ে না।

follow me on:

Leave a Comment: